" crossorigin="anonymous"> ফিলিস্তিনি ইস্যুতে টুইট করে বিতর্কের মুখে বাংলাদেশের Great বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী 13December 2023 - Sukher Disha...,

ফিলিস্তিনি ইস্যুতে টুইট করে বিতর্কের মুখে বাংলাদেশের Great বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী 13December 2023

একদিকে ফিলিস্তিন আর অন্যদিকে গাঁজা বা ইসরাইলের যুদ্ধে আজ বিশ্ব উত্থান । বিশ্বের দেশগুলি এই যুদ্ধকে কেন্দ্র করে গোটা পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে গিয়েছে।‌ কেউ ফিলিস্তিনের পক্ষে আর কেউ কেউ বা ইসরাইলের পক্ষে ।

ফিলিস্তিনি ইস্যুতে টুইট করে বিতর্কের মুখে বাংলাদেশের Great বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী

মধ্যপ্রাচ্য ও বিশ্বের মুসলিম দেশগুলির ফিলিস্তিনের পক্ষে কথা বলেছে এছাড়াও অনেক অমুসলিম দেশ রাশিয়া, চীন বিভিন্ন দিক দিয়ে স্বাধীন ফিলিস্তিনের পক্ষো নিয়েছে । আবার এদিকে যুক্তরাষ্ট্র ইসরাইলের পক্ষ নিয়েছে ব একতরফা সমর্থন করেছে । যদিও যুক্তরাষ্ট্র ইজরাইলকে সমর্থন করা একদম ঠিক হয়নি । ইসরাইল যেভাবে ফিলিস্তিনের উপর হত্যা লীলা চালাচ্ছে এই হত্যা লীলা বন্দনা হলে গোটা পৃথিবীতে এই যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়বে । এবং তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের সূচনা শুরু হবে ।

গাজায় বেসামরিক নাগরিকদের বা সাধারণ জনগণের ওপর হামলা বন্ধ না হলে পুরো অঞ্চলে যুদ্ধ ছড়িয়ে দিবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে হেজবুল্লাহ সংগঠন ।এছাড়া
হেজবুল্লাহর নেতারা বেশ কিছুদিন ধরেই বলে আসছে যে গাজায় ইসরায়েলি হামলার হত্যা লীলা বন্ধ না হলে সমস্ত মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধ ছড়িয়ে দিবে ।
গত কিছুদিনে লেবানন থেকে ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চলে হামলার মাত্রা বাড়িয়েছে হেজবুল্লাহ।


হেজবুল্লাহর শীর্ষ নেতা হাসান তার বক্তব্যে দাবি করেছেন যে হেজবুল্লাহ ইসরায়েলে হামলা করতে অত্যাধুনিক অস্ত্রও ব্যবহার করছে । এবং তারা বলেছে এর থেকে অত্যাধুনিক অস্ত্র তারা ব্যবহার করবে । যদি ইসরাইল এই যুদ্ধ বন্ধ না করে তাহলে হিজবুল্লাহ সংগঠন আরও শক্তিশালী হতে বাধ্য হবে ।


তবে হেজবুল্লাহ যোদ্ধারা এখনো ইসরায়েলের সীমান্ত এলাকাতেই বোমা ও রকেট হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। ইসরায়েলের ভেতরে তারা হামলা করবে কিনা, সে বিষয়ে এখনও পরিষ্কার করে কিছু বলেনি তারা । তবে যুদ্ধ পরিস্থিতি আরো তীব্র হলে বা ইজরাইল যদি এই যুদ্ধের মাত্রা আরো বাড়িয়ে দেয় তাহলে হিজবুল্লাহ সংগঠন ইসরাইলের গ্রাম অঞ্চলে বা শহরে বোমা ও রকেট হামলা চালাবে বলে দাবি করেছে।

এই পরিস্থিতিতে এশিয়া মহাদেশের এক মুসলিম রাষ্ট্র যার নাম বাংলাদেশ । সে দেশের এক বিখ্যাত ধর্মীয় আলোচক মাওলানা সাহেব মিজানুর রহমান আজহারী সোশ্যাল মিডিয়ায় ফিলিস্তিনি ও ইজরাইলের যুদ্ধের সম্পর্কে এক পোস্ট দিয়ে তিনি ভাইরাল হয়েছেন ।
হামাস ও ইসরাইলের যুদ্ধের পরিস্থিতি নিয়ে উত্তপ্ত বিশ্বের প্রতিটি দেশ প্রতিটি মানুষ । বিশেষ করে শুধুমাত্র মুসলিম দেশগুলিকে আঘাত হেনেছে ইসরাইল ও যুক্তরাষ্ট্র বিরোধী মনোভাব । এমন পরিস্থিতিতে ফিলিস্তিনের সামরিক বাহিনীকে নিয়ে এক বিতর্কিত বক্তব্য পোস্ট করে বিপদে পড়েছেন নামজাদা এক বাংলাদেশী বক্তা মিজানুর রহমান আজাহারী । তিনি এখন মালয়েশিয়া তে আছেন । এবং মালোশিয়া নাগরিকত্ব নিয়েছেন। এক সোশ্যাল মিডিয়ায় গত 7 অক্টোবর ইসরাইলের শহরের অভ্যন্তরে ফিলিস্তিনি যোদ্ধাদের অধীনে থাকা আল আকসা মসজিদের সমালোচনা করেন মিজানুর রহমান আজাহারী।

দেখা যাক মিজানুর রহমান আজহারী Twitter – এ কি বিতর্কিত টুইট করেছিলেন


মিজানুর রহমান আজাহারী নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়া পেজ থেকে ফিলিস্তিনি সৈন্যরা আঘাত হেনেছে সে বিষয়ে তিনি নিন্দা প্রকাশ করেছে । এই আঘাতের কারণে নিরাপরাধ গাঁজা বাসা এক সমস্যায় পড়ে । এমন সহিংসতার বিরুদ্ধে ইসরাইলবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আমন্ত্রণ জানান তিনি । এ সময় তিনি ইসরাইলি বন্দীদের মুক্তির জন্য দাবি করেন । ও ইহুদিদের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের গুরুত্বের কথা বলেন । মিজানুর রহমান দুই দেশের মধ্যে ব্যক্তিগত মীমাংসার কথা বলেন ও দুই দেশের অসামরিক বাহিনীর হত্যা বন্ধ করা একান্ত কর্তব্য বলে জানান তিনি ।


তিনি আরো বলেন ভবিষ্যতে মুসলিম ও ইহুদিদের দুই দেশের নিজেদের মধ্যে মীমাংসা বোঝাপড়া ও সহানুভূতি কথা । এক কথায় তিনি সমস্ত যুদ্ধ পরিস্থিতিকে বন্ধ করে দিয়ে দুই দেশের মধ্যে ভাতৃত্ববোধ বজায় রাখার কথা বলেন । এই পোষ্টের পরে মিজানুর রহমান আজহারীর এই কথাই সমালোচনায় মুখর হয়ে ওঠে ফিলিস্তিনের সমর্থকরা । এই সমালোচনার মুখে পড়ে তিনি ভুল স্বীকার করে ও দুঃখ প্রকাশ করে নতুন একটি পোস্ট দেন তিনি ।

এবং এই পোস্টে তিনি জানান এই পোস্টে তার নিজের দেওয়া নয় । তিনি আরো জানান তার কোন নিজস্ব টুইটার একাউন্ট নেই । বা তিনি ব্যক্তিগতভাবে কোন twitter একাউন্ট চালান না ।তিনি এই পোস্টের মাধ্যমে জানান তার শুধুমাত্র একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আছে ।


তিনি আরো বলেন ভবিষ্যতে মুসলিম ও ইহুদিদের দুই দেশের নিজেদের মধ্যে মীমাংসা বোঝাপড়া ও সহানুভূতি কথা । এক কথায় তিনি সমস্ত যুদ্ধ পরিস্থিতিকে বন্ধ করে দিয়ে দুই দেশের মধ্যে ভাতৃত্ববোধ বজায় রাখার কথা বলেন । এই পোষ্টের পরে মিজানুর রহমান আজহারীর এই কথাই সমালোচনায় মুখর হয়ে ওঠে ফিলিস্তিনের সমর্থকরা । এই সমালোচনার মুখে পড়ে তিনি ভুল স্বীকার করে ও দুঃখ প্রকাশ করেন ।

এই পোস্টটি সম্পর্কে তিনি একটি ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন এবং এই পোস্টে তিনি জানান এই পোস্টে তার নিজের দেওয়া নয় । তিনি আরো জানান তার কোন নিজস্ব টুইটার একাউন্ট নেই । বা তিনি ব্যক্তিগতভাবে কোন twitter একাউন্ট চালান না । তিনি এই পোস্টের মাধ্যমে জানান তার শুধুমাত্র একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আছে ।
তিনি বলেন বেশ কিছুদিন আগে তার নতুন টুইটার একাউন্ট ভেরিফাইড করতে দেয়া হয় একজন ব্যক্তিকে । ওই ব্যক্তি এই পোস্টগুলি করেছেন এ কথা তিনি জানান । তিনি তার এই টুইটার একাউন্টের পেজ থেকে এই পোস্টটি সঙ্গে সঙ্গে ডিলিট করে দেন ও ভুল স্বীকার করেন ।


ফিলিস্তিনে যে হত্যা লীলা চলছে এর জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং বলেছেন ফিলিস্তিনের ইসু আমাদের হৃদয়ের ইসু , ঈমানের ইস্যু, ইসলামের ইস্যু বা সমস্যা । এ ইস্যু কে আমরা সারা জীবন বুকে ধারণ করে থাকবো । মসজিদুল আকসা আমাদের হৃদয়ের মসজিদ । একে আমরা যত কষ্টই হোক রক্ষা করব । আমাদের ইচ্ছা বা স্বপ্ন আমরা যেন পৃথিবীর সবাই এই মসজিদে নামাজ পড়তে পারি । যেমন আমরা মসজিদে হারাম মসজিদের নববীতে নামাজ পড়ি সেরকম যেন আমরা এই মসজিদুল আকছা মসজিদে নামাজ পড়তে পারি আল্লাহর কাছে আমাদের প্রার্থনা ।

Read Mora>>>>>>>>

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *