" crossorigin="anonymous"> মুম্বাইয়ের ১৬ তলা থেকে পড়ে মৃত্যু ডোমকলের এক শ্রমিকের Mumbai is very good and wonderful place 2024 - Sukher Disha...,

মুম্বাইয়ের ১৬ তলা থেকে পড়ে মৃত্যু ডোমকলের এক শ্রমিকের Mumbai is very good and wonderful place 2024

কার মৃত্যু কোথায় হবে কিভাবে হবে তা সকলের অজানা । যার মৃত্যু যেখানে আছে তাকে সেখানে যে ভাবেই হোক যেতে হবে। এই রকমই একটা মৃত্যুর খবর বোলবো আপনাদের কে চলুন দেখি

মুম্বাইয়ের ১৬ তলা থেকে পড়ে মৃত্যু ডোমকলের এক শ্রমিকের Mumbai is very good and wonderful place

মুম্বাই এর 16তলা বিল্ডিং এর উপর থেকে পড়ে মৃত্যু হলো এক যুবকের । 16তলা বিল্ডিং এর বাইরের সাইডে ভাড়ার উপরে কাজ করছিল কয়েকজন যুবক । কাজ করতে করতে ভাড়ার উপর থেকে অসাবধানতার দরুন নিচে পড়ে ঐ যুবক । তখনই সাথে সাথে ওখানে থাকা কয়েকজন যুবক তড়িঘড়ি তাকে নিয়ে যায় কাছাকাছি কোন হাসপাতালে । হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার আগেই সব শেষ। তবুও হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসাপাতালের চিকিতসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে । ঘটনাটি ঘটেছে গত পরশু দিন 12জানুয়ারী 2024 শুক্রবার দুপুর 12থেকে 1টা নাগাদ মুম্বাইয়ের তানবির এলাকায়।

by google image

মুম্বাইয়ের 16তলা থেকে পড়ে মৃত যুবকের নাম নুরাবুল সেখ । তার বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার ডোমকল থানার সাহাদিয়াড় গ্রামের মাঠপাড়ায় । এর আগেও দুই একবার বিভিন্ন জায়গায় কাজ করতে গিয়েছিল সে । এবার কাজ করতে যেতে চাইছিল না ।আর কাজে না গেলেও যে হবে না,বাড়িতে যে অভাব । তাই সে যেতে বাধ্য হয়েছিল । কি আর করা যাবে মৃত্যু যেখানে থাকবে সেখানে তো যেতেই হবে । ভাগ্যের কি পরিহাষ দুই এক মাস পরেই বাড়ি ফিরে আসার কথা ছিল । কিন্তু জীবিত অবস্থায় আর বাড়ি ফেরা হলো না । বাড়ি ফিরলো তবে মৃত অবস্থায় ।

নুরাবুল ইসলামের সেখের বাড়ির পরিস্থিতি

মুর্শিদাবাদের ডোমকল থানার সাহদিয়াড় মাঠপাড়ায় নুরাবুল শেখের বাড়িতে তার মৃত্যুর খবর পৌঁছাতেই কান্নায় ভেঙে পড়ে তার পরিবার এবং আত্মীয় স্বজনরা । নুরাবুল শেখের আত্মীয়-স্বজনরা বাড়িতে এসে ভিড় করতে শুরু করে । নুরাবুল শেখ এর বাড়ির একজনের একজন সদস্যের বক্তব্য তিনি বলেন বাইরে কাজে গিয়ে পরিযায়ি শ্রমিকের মৃত্যু এটা খুব একটা নতুন নয় । বাইরে কাজে গিয়ে পরিযায়ি শ্রমিকের মৃত্যু এ সংবাদ মাঝে মাঝে শোনা যায়। তবে আমরা আমরা ভাবিনি যে সংবাদ আমাদেরকেই শুনতে হবে । এ কথা বলতে বলতে তিনি কান্না ভেঙে পড়েন ।

বেশ কয়েক বছর থেকে বাইরে কাজ করে সে সংসার চালাই । বাইরে কাজ করতে যাওয়া তার নতুন নয় । দেশের বিভিন্ন জায়গায় কাজ করতে গিয়েছে সে । কিন্তু এবার প্রায় তিন/চার মাস আগে সে মুম্বাইয়ে কাজ করতে যাই আরো প্রতিবেশীর সঙ্গে । সামনে রোজায় বাড়ি আসার কথা ছিল তার । এবং প্রতিদিন বাড়ির সদস্যদের সঙ্গে কথা হতো । মারা যাওয়ার একদিন আগেই কথা হয়েছে তার সঙ্গে পরিবারের স্ত্রী ও সদস্যদের । বাড়িতে নুরাবুল শেখের এক ছেলে এবং এক মেয়ে । বাড়ির বড় মেয়ে এবং তার ছেলে দুজনেই নাবালিকা । বাড়িতে সংসারের অভাব । নুরাবুল শেখের মাঠে চাষ আবাদ করার মতো কোন জমি জায়গা ছিল না ।

নুরাবুল ইসলাম সেখ একজন দরিদ্র মানুষ

দিন আনে দিন খায়,ও নুন আনতে পান্তা ফোরায় অবস্থা । তাই মেয়ে বিবাহ যোগ্য হওয়ার আগেই বিবাহের সমস্ত খরচ জোগাড়ের জন্য এবার বোম্বে পাড়ি দিয়েছিলেন কাজের উদ্দেশ্যে । আর সে কাজ করছিল মুম্বাইয়ে কোন এক এলাকায় 16তলা বিল্ডিং এর উপরে আর তখনই কাজ করতে করতে ওখান থেকে নিচে পড়ে যায় সে । আর ততক্ষণাত তড়িঘড়ি করে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় । হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিতসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে ।

এই সংবাদে তার পরিবারে ও গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে । গ্রামবাসীদের বক্তব্য নুরাবুল শেখ খুব ভালো ছেলে ছিল ও গ্রামের সকলের সঙ্গে তার খুব ভালো সম্পর্ক । নুরাবুল শেখের এই মৃত্যু গ্রামের কেউ মেনে নিতে পারছে না তাই গ্রামের সকলের মধ্যে একটা দুঃখ কষ্ট বিরাজ করছে । নূরাবুল শেখের বৃদ্ধ মা সব থেকে বেশি শোকাহত সে কোনোভাবেই কান্না থামাতে পারছে না নুরাবুল সেখের মা বলছে আমার ভালো ছেলে গেল কাজের উদ্দেশ্যে এর এভাবে তাকে ফিরতে হবে এই সব বলতে বলতে নুরাবুল সেখের মা কান্নায় ভেঙে পড়লো ।

পরিশেষে

এই ভাবে আর কত পরিযায়ি শ্রমিককে ভিন রাজ্যে কাজে গিয়ে মরতে হবে । ভিন রাজ্যে কাজে গিয়ে পরিযায়ি শ্রমিকদের এই হাল । কিন্তু কি আর করা যাবে পেট তো আর মানবে না । আমাদের রাজ্যে যদি কাজ পাওয়া যেত তাহলে আর শ্রমিকদের ভিন রাজ্যে কাজ করতে যেতে হতো না । ভাগ্যের পরিহাস মানতে না চাইলেও মানতে হবে আর দুঃখ কষ্ট কেউ বুঝে সহ্য করতে হবে । তাই বলছি যেসব শ্রমিকরা বাইরে কাজ করছেন তারা অনেক সাবধানতা অবলম্বন করবেন ।

Read More>>>>>

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *